মোঃ সাইদুর রহমান মাদারীপুর প্রতিনিধিঃ দেড় মাসেরও অধিক সময় পর শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটে ২টি কেটাইপ ফেরি পরীক্ষামূলকভাবে চলে ৪টি ট্রীপ দিয়েছে। উভয় প্রান্ত থেকে পদ্মা সেতু অতিক্রমকালে কোন ধরনের সমস্যার সৃষ্টি হয়নি।

ফেরি ২টিতে বিআইডব্লিউটিসি, বিআইডব্লিউটিএ, সেনাবাহিনী, সেতু কর্তৃপক্ষের উপস্থিত থেকে পর্যবেক্ষন করেন। এছাড়াও পদ্মা সেতু অতিক্রমকালে সেনাবাহিনীর নৌযান লক্ষ্য করা গেছে।

সুত্রে জানা যায়, তীব্র স্রোতে পদ্মা সেতুর পিলারে একাধিক ফেরির ধাক্কার ঘটনায় দূর্ঘটনায় গত ১৮ই আগষ্ট থেকে শিমুলিয়া-বাংলাবাজার রুটে ফেরি সার্ভিস বন্ধ রয়েছে।

পদ্মা নদীতে তীব্র স্রোতের গতিবেগ কমায় সোমবার বেলা ১১টার দিক শিমুলিয়া ঘাট থেকে ৩৮টি যানবাহন নিয়ে বাংলাবাজার ঘাটের উদ্দ্যেশে ছেড়ে আসে কেটাইপ ফেরি কুঞ্জলতা ১৪ ও ১৫ নং পিলারের মধ্য দিয়ে অনায়াসেই অতিক্রম করে।

তবে এসময় সেনাবাাহিনীর নৌ যানকে দিক নির্দেশনা করতে দেখা যায়। এছাড়াও নদীর বিভিন্ন স্থানে বিআইডব্লিউটিএ অবস্থান করে দিক নির্দেশনা করে। ফেরিটি বাংলাবাজার ঘাটে পৌছার পর আবারো যানবাহন লোড করে শিমুলিয়ায় পৌছায় ।

এদিকে বাংলাবাজার ঘাট থেকে ও কেটাইপ ফেরি ক্যামেলিয়া যানবাহন বোঝাই করে শিমুলিয়ায় পৌছায়। বাংলাবাজার থেকে ছেড়ে যাওয়া ফেরিগুলো ১৯ ও ২০ নং পিলারের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। বিকেলে সর্বশেষ শিমুলিয়া ঘাট থেকে ফেরি কুঞ্জলতা যানবাহন বোঝাই করে বাংলাবাজার আসে।

বিআইডব্লিউটিসির পরিচালক মোঃ আশিকুজ্জামান বলেন, ফেরি সার্ভিস পর্যবেক্ষন করে সকাল ৬ টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত ফেরি চালানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। ৫টি কেটাইপ ফেরি সাময়িকভাবে হালকা যানবাহন নিয়ে চলবে।