মোঃ সাইদুর রহমান মাদারীপুর প্রতিনিধি: মাদারীপুরের রাজৈর উপজেলার টেকেরহাট-কালীবাড়ী ফিডার সড়কটি গোয়ালবাথান নামক স্থানে কুমার নদে বিলীন হয়ে গেছে। ফলে হরিদাসদী-মহেন্দ্রদী ইউনিয়নের হাজার হাজার মানুষের উপজেলা এবং জেলার সাথে যোগাযোগ দুরূহ হয়ে পড়েছে।

সোমবার সকাল পর্যন্ত দুপুর পর্যন্ত সড়কটি বিলীণ হয়েছে। সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, উপজেলার টেকেরহাট-কালীবাড়ী ফিডার সড়কের গোয়ালবাথান নামক স্থানে প্রায় ৩০০ মিটার পাঁকা সড়ক কুমার নদে বিলীণ হয়েছে। কুমার নদের পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় গত ৫ সেপ্টেম্বর রবিবার রাতে পাকা রাস্তাটির অর্ধেক ভেঙ্গে কুমার নদে চলে গিয়েছিল। ছোট ছোট যানবাহন বিশেষ করে মোটরসাইকেল, ইজিবাইক ও ভ্যান ঝুকি নিয়ে কোনরকমে আসা যাওয়া করছিল।

সরকারী উদ্যোগে সেখানে জিও ব্যাগ ফেলে রাস্তাটি রক্ষার চেষ্টা করা হয়েছিল। কুমার নদের পানি কমতে শুরু করায় জিওব্যাগগুলি ভেসে গেছে। আবার ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। সোমবার রাস্তাটির বাকী অংশ নদে বিলীণ হয়ে গেছে। ফলে এই সড়ক দিয়ে যাতায়াত পুরোপুরি বন্ধ হয়ে গেছে। হরিদাসদী-মহেন্দ্রদী ইউনিয়নের মানুষ কবিরাজপুর অথবা হোসেনপুর ঘুরে যাওয়া আসা করছে।

এলাকাবাসীদের মধ্যে নারায়ন হালদার, ফেরদাউস, মিরুল, শহর আলীসহ অনেকেই জানিয়েছে, কুমার নদ থেকে অপরিকল্পিতভাবে বালু উত্তোলণের ফলে এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। এখনই এটা রোধ না করা হলে বিদ্যানন্দী মাঠের সকল ফসলী জমি নদের পানিতে ডুবে যাবে। আমরা ক্ষতিগ্রস্থ হয়ে যাব। হরিদাসদী-মহেন্দ্রদী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রেজাউল করিম জানান, উপরস্থ কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলে ভাঙ্গন রোধের চেষ্টা করা হয়েছিল।

কিন্তু তার আগেই কুমার নদ সব গ্রাস করে নিল। এখন আমাদের এলাকার মানুষের বেশি অর্থ ব্যয় করে অনেকটা পথ ঘুরে জেলা উপজেলার সাথে যোগাযোগ করতে হবে। মাদারীপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রকৌশলী পার্থ প্রতিম সাহা জানান, গত মাসে নদের ভাঙ্গনে রাস্তাটির অর্ধেক বিলীণ হয়ে গিয়েছিল।

আমরা তাৎক্ষনিকভাবে জিওব্যাগ ফেলে ভাঙ্গন প্রতিরোধ করেছিলাম। এছাড়াও মাদারীপুরে নদ-নদীর ভাঙ্গন রোধে বড় প্রকল্প পাঠানো হয়েছে। অনুমোদন হলে স্থায়ীভাবে নদের শাসন কাজ করে রাস্তা নির্মাণ করতে হবে।