বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে সবশেষ হারটা ছিল সেই ১৯৯৩ সালে। তারপর প্রায় ২৮ বছর ধরে আর কোনো ম্যাচে হারেনি স্প্যানিশরা। তবে কোচ লুইস এনরিকের স্পেনকে সেই ভুলতে বসা বিষয়টাই আবারও মনে করিয়ে দিল সুইডেন। শুরুতে গোল হজম করেও ২-১ গোলে হারিয়েছে স্পেনকে, উঠে এসেছে ইউরোপীয় অঞ্চলের বিশ্বকাপ বাছাইয়ে নিজেদের গ্রুপ ‘বি’-এর শীর্ষেও।নিজেদের মাঠ ফ্রেন্ডস অ্যারেনায় বৃহস্পতিবার রাতের ম্যাচটি শুরুতে গোলবন্যারই আভাস দিচ্ছিল। শুরুর পাঁচ মিনিটই যে দেখে ফেলেছিল দুই গোল। স্পেনের হয়ে গোলটা করলেন যিনি, সেই কার্লোস সোলের অভিষিক্ত হয়েছিলেন তিনি। অভিষেকের চার মিনিটেই কিনা গোলের দেখা পেয়ে যান তিনি। জর্দি আলবার ক্রস থেকে রসদটা পেয়েছিলেন, সেটাই দারুণ এক ভলিতে সুইডিশদের জালে জড়ান তিনি।

তবে সেই পর্যন্তই স্পেনের সুখস্মৃতি। পরের মিনিটেই সমতা ফেরায় স্বাগতিকরা। বক্সের বাইরে থেকে দারুণ এক শট করে বসেন আলেক্সান্ডার ইসাক, পেয়ে যান গোল।এরপর আলভারো মোরাতার কাছে এসেছিল সুযোগ, কিন্তু কাজে লাগাতে পারেননি সাবেক রিয়াল মাদ্রিদ ফরোয়ার্ড। প্রথমার্ধে সুযোগ আর সৃষ্টি করতে পারেনি কোনো দলই।৫৬ মিনিটে অবশেষে গোলের দেখা পায় সুইডেন। দেয়ান কুলুসেভস্কির বাড়ানো বলে ভিক্টর ক্লাসেনের গোল এগিয়ে দেয় স্বাগতিকদের। গোল খেয়ে ম্যাচ থেকে আরও ছিটকে যায় স্পেন, কোনোপ্রকার হুমকিই সৃষ্টি করতে পারেনি লুইস এনরিকের দল। ২-১ গোলে হেরে মাঠ ছাড়ে তারা।তিন ম্যাচে তিন জয় নিয়ে সুইডেন উঠে এসেছে গ্রুপের শীর্ষে। স্পেন খেলেছে একটি বেশি ম্যাচ, ৭ পয়েন্ট নিয়ে নেমে গেছে দুইয়ে। দিনের অন্য ম্যাচে জর্জিয়াকে একমাত্র গোলে হারিয়ে উঠে এসেছে তালিকার তিনে। দুই ম্যাচ খেলে গ্রিস পেয়েছে ২ পয়েন্ট, আর দুটো ম্যাচ বেশি খেলে জর্জিয়ার সংগ্রহ ১ পয়েন্ট।