বাগমারার গোয়ালকান্দিতে ১৭ লক্ষ টাকা ও ১১ ভরি স্বর্ন নিয়ে উধাও প্রবাসীর স্ত্রী।

রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার গোয়ালকান্দি ইউনিয়নের রামরামা হাসনিপুর গ্রামের প্রবাসীর স্ত্রী আন্জুয়ারা (৩৫)। ১৭ লক্ষ টাকা ও ১১ ভরি সোনার গহনা নিয়ে উধাও হয়েছে।

বাগমারা থানার অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, গত ১৮ জুলাই সকাল ৯ টার সময় কেনাকাটা করার জন্য বাড়ি হতে বাহির হয় আন্জুয়ারা। দুপুর পর্যন্ত বাড়ি না আসলে আন্জুয়ারার ব্যবহিত মোবাইল ফোনে কল দিলে ঘরের ভিতরে ফোন বেজে ওঠে।

এদেখে তাদের সন্দেহ হয় পরে চারিদিকে খোঁজা খুঁজি করে না পেয়ে রাতে গিয়ে বাগমারা থানায় প্রবাসীর মা বাদি হয়ে অভিযোগ দায়ের করে।

অভিযোগ সুত্রে আরো জানা যায়,তাহেরপুর সুলতানপুর মহল্লার তফিক এর মেয়ের সাথে রামরামা হাসনিপুর গ্রামের শাজাহান এর সাথে ১৫ বছর পূর্বে বিবাহ হয়।বিয়ের পর ভালোই চলছিলো তাদের সুখের সংসার।

তাদের এ সংসার জীবনে দুই কন্যা সন্তানের জন্ম হয়।বড় মেয়ের বয়স ১৫ বছর আর ছোট মেয়ের বয়স ৪ বছর। শাহজাহান প্রবাসে থাকলেও মাঝে মাঝে বাড়ি আসতেন।

স্ত্রী সন্তানের সুখের জন্য বিশাল বাড়ি সহ অনেক কিছু করেছেন কিন্তু সুখের ঘরে নেমে আসলো অন্ধকার। কি হবে দুই সন্তানের এনিয়ে এলাকায় ব্যাপক সমালোচনা শুরু হয়েছে।তাছাড়া দুই সন্তানের বিয়ের জন্য জমানো সব টাকা নিয়ে উধাও হওয়া আন্জুয়ারা কে ধরতে মাঠে কাজ করছে বাগমারা থানা পুলিশ।

কার সাথে চলে গিয়েছে এমন প্রশ্নের উত্তরে প্রবাসীর পরিবার জানান,আন্জুয়ারা রেখে যাওয়া ব্যবহিত মোবাইলে কতোপকোথন শুনে জানা যায় বগুড়া হতে আসা সগুণা কোম্পানি তে কর্মরত জাহাঙ্গীর আলম নামে এক ব্যাক্তির সাথে প্রেমর সম্পর্ক গড়ে উঠে।

বাড়িতে মুরগীর খামার মাঝে মাঝে দেখতে আসতেন জাহাঙ্গীর আলম।এর সুত্র ধরে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে।শেষ পর্যন্ত গত রবিবার দুই সন্তানকে রেখে টাকা ও সোনা নিয়ে উধাও হয় আন্জুয়ারা।এ পর্যন্ত তাদের কোন খোঁজ খবর পাওয়া যায় নি।